২রা ফেব্রুয়ারী বিবাহ বন্ধনে বাঁধা পরতে চলেছেন স্বনামধন্য গায়িকা ইমান চক্রবর্তী এবং নিলাঞ্জন ঘোষ! বিয়ের মেনু থেকে নিজের সাজ সজ্জা নিয়েও শেয়ার করলেন দুজনে

নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ  টলিপাড়ায় খুশির আমেজ। ৩ রা অক্টোবর রেজিস্ট্রি বিবাহ বাধা পড়েছে ইমন ও নিলাঞ্জন ঘোষ। তবে খুব শীঘ্রই তারা মালাবদল করে বিয়ে করতে চলেছে আনুষ্ঠানিক ভাবে। সেই বিয়ের তারিখ নির্দিষ্ট করেছেন ইমন ফেব্রুয়ারির ২ তারিখে বিয়ে করছে ইমন এবং নিলাঞ্জন। তারা নিজেরাই জানিয়েছে এই বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন জাঁকজমক করেই হবে আর সেই আয়োজন যাতে সঠিকভাবে হয় তার জন্য তারা অনেক প্রস্তুতি নিয়েছে। যদিও তার মধ্যে দুজনই এখন অনেক ব্যস্ত কিভাবে সেই প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং প্রত্যেকের দায়িত্ব কে নিয়েছে নিজেদের জন্য দরকার অনেক কেনাকাটা শপিং করা। কিন্তু তার জন্য একেবারেই সময় পাচ্ছে না। নিজেদের ক্যারিয়ার নিয়ে এতটাই ব্যস্ত যেখানে এইসবের সময় দিতে খুব অসুবিধে হচ্ছে তাদের।


তার জন্য আরও একজন মেকআপ আর্টিস্ট রাখা হয়েছে তাদের উপর সমস্ত দায়িত্ব রয়েছে এবং কেমন সাজে সেজে উঠতে পারে তার কিছুটা দিয়েছে হলপনামা দিয়েছে সংবাদমাধ্যমের কাছে ইমন চক্রবর্তী ও নিলাঞ্জন ঘোষ। তিনি জানিয়েছে তিনি গায়ে হলুদ এবং রাতে বিয়েতে কি পড়বে যদি ওই অনুষ্ঠানেই হবে একেবারে বাঙ্গালিয়ানা বজায় রেখে। আর একিদিনে হবে দুই বারির অনুষ্ঠান, ইমন চক্রবর্তীর বিবাহ অনুষ্ঠানের পরে হবে অতিথি আপ্যায়ন। একই দিনে সমস্ত কাজ শেষ করার কথা ভেবেছে তারা। যদিও এখনও পর্যন্ত তারা স্পষ্ট ভাষায় জানায়নি তাদের বিয়ের আয়োজন অতিথি আপ্যায়নে থাকছে কি কি মেনু। তবে এটুকু তারা জানিয়েছে কিভাবে দুজনে সেজে উঠবে একে অপরের পরিপূরক এর মাধ্যমে নিজেদেরকে নিবেদন করতে চাইছে। সকালবেলা গায়ে হলুদের সময় সাদা কেরালা প্রিন্টের শাড়ি জরির পাড় গোল্ডেন পারের উপর শাড়ি এবং সাবেকিয়ানার গায়ে হলুদের সাজ সজ্জা নেবে ইমন চক্রবর্তী এবং একইভাবে হলুদ পাঞ্জাবি এবং সাবেকী এই ভাবেই সজ্জিত হবে নিলাঞ্জনও।



আর পরে রইল সন্ধ্যাবেলা, তখন ইমন চক্রবর্তী লাল বেনারসি এবং ফুলের মালা ও সাবেকি গয়নায় সেজে উঠবে সাথে কপালে চন্দনের আঁকা কলকা। একই রকমভাবে বিয়ের মন্ডপে ওপর দিকে থাকবে নিলাঞ্জন ঘোষ। লাল পাঞ্জাবিতে উঠবে অপরুপ। এই রকমই জানিয়েছে তবে তারা এখনো পর্যন্ত অতিথি আপ্যায়নের জন্য কি কি মেনু থাকছে তাদের বিয়েতে তা জানায়নি শুধু এটুকুই জানিয়েছে যে বাঙালিয়ানার বাঙালি সব খাবার থাকবে। আমাদের সমস্ত কাজে আমাদের প্রত্যেকটা আইটেম থাকবে বাঙালি। আমরা বাঙালি অনেক বেশি পছন্দ করি দুজনে তাই আমাদের বিয়ের সকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত যা কিছু খাবার থাকবে সবটাই বাঙালি। সমস্ত রকম বাঙালি খাবার রাখার কথা জানিয়েছে। তবে সেগুলো কি কি তা মেনশন করেন নি তারা দুজনেই। এইটুকু অন্তত সারপ্রাইজ রাখতে চেয়েছে সবাই। এর জন্য আর তার সাথে সাথে তারা জানিয়েছে যে এই ব্যস্ততম জীবনে এই কাজটা হয়তো অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কোনোভাবেই তারা সময় দিতে পারছে না। তাই বলে কাজ থেমে নেই অনেক বেশি উৎফুল্ল এবং আনন্দের মধ্য দিয়ে আনন্দ করছেন ইমন।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন