বারিতেই বানিয়ে ফেলুন স্পঞ্জি কেক! কিভাবে বানাবে চুলায় কেক জানতে এক্তুনি দেখে নিন

নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ আজকালকার দিনে মানুষ বাইরের খাবারের সাথে সাথে বাড়িতেও বানায় নিজেদের হাতের বানানো বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক খাবার। তার সাথে সাথে প্রত্যেকটা মুহূর্তে মানুষ নিজেদেরকে অনেক বেশি এক্সপ্লোর করার চেষ্টা করে বিশেষ করে যারা রন্ধন পিপাসু এবং খাদ্য মানুষ পিপাসু তাদের জন্য। তারা প্রতিমুহূর্তে বিভিন্ন রান্নাবান্না খাবার-দাবার প্রত্যেকটা জিনিসের উপর অনেক বেশি জোর দিয়ে চেষ্টা করে যে তার মধ্যে কি দেওয়া হয়েছে কিভাবে সেটিকে আরো বেশি সুন্দর করা যায়। আর এরকম ভাবে তারা অনেক কিছুই শেখে। সব মানুষ শিখে আসে না কিন্তু প্রত্যেকটা মানুষ একটি আগ্রহ ভরে শেখার নির্দিষ্ট সময়সীমা রাখে প্রত্যেকটা মানুষ সবকিছু শিখবে তা নয় কিন্তু ইন্টারনেটের যুগে এখন না শেখা কোন জিনিস নেই। এইভাবে এর আগেও আমরা অনেক রান্নার ভিডিও আপনাদের সামনে দিয়েছি এবং তার সাথে সাথে প্রত্যেকটা প্রণালী আমরা লিখে দিয়েছিলাম আর এবারেও আমরা ঠিক একইভাবে আপনাদেরকে একটি সুন্দর সামনে আনতে চাই সেটি হল ঘরে বানান প্রেসার কুকারে বা চুলায় কেক।


আজকের কেক বানানোর রেসিপি প্রথমে শুরু করবো। আমাদের কেক বানানোর জন্য প্রথমত আমাদের লাগছে ময়দা, ডিম, তার সাথে লাগছে ভ্যানিলা,  বেকিং পাউডার,  রিফাইন তেল  এবং নিকেল কোটেড পাত্র যেটির মধ্যে আপনি কি পাতবেন সেটি আপনি আপনার ঘরোয়া কোন ফুল টেম্পারেচার কাঁচের পাত্র হতে পারে আবার সেটি নিকেল পাত্র কিনে আনতে পারেন। সেটা আপনার উপর ডিপেন্ড করে। নির্ভর করে কিভাবে আপনি একটি বানাবেন সেটি আগে বলবো।



সবাই ভাবে ডিম এবং ময়দার পরিমাণ সবসময় কেকে সমান হওয়া দরকার কিন্তু না আপনি ডিমের পরিমাণ বেশি দিয়েছেন ময়দা কম দিয়েছে অধিক পরিমাণে ব্লেন্ড করুন আপনি যদি চান তাহলে অনেক বেশি ফুলবে। সবসময়ের জন্য এমনটা নয় যে কেকের পরিমাণ সবসময় সমান হতে হবে তবে সবার আগে এটুকু দরকার আপনি ডিমটাকে খুব ভালো করে ব্লেন্ড করুন। যত ভালো করে ব্লেন্ড করবেন তত বেশি নরম হবে। ব্লেন্ডারের মধ্যে বারবার সেটিকে ঘুরিয়ে নিন অর্থাৎ আপনি যখন তার আগেই অনেকটা বেশি ফোলা ভাব হবে। তখন দেখবেন আপনার কেক কি খুব কম সময়ের মধ্যে হয়েছে এবং ফুলেছে এবং নরম এবং হয়েছে।


প্রথমে আপনি একটা পাত্রের মধ্যে 3 কাপ চিনি নেবেন। মিষ্টিটা যদিও আপনার ইচ্ছের উপর ডিপেন্ড করে। নির্ভর করে তারপর তার মধ্যে দেবেন চারটে ডিম এবং রিফাইন তেল দেওয়ার পর খুব ভালো করে এটিকে ব্লেন্ড করবেন। যতক্ষণ না চিনি গলে যাচ্ছে যদিও এখানে আপনি গুড়ো চিনি ব্যবহার করবেন অর্থাৎ মিক্সার গ্রাইন্ডার চিনি তাকে ঘুরিয়ে নেবেন। তারপর সেই পাউডার চিনি তাকে এখানে ব্যবহার করবেন। সেটি ততক্ষণ পর্যন্ত ব্লেন্ড করতে থাকুন যতক্ষণ না ডিম টা ভালোভাবে ফুলে সাদা হচ্ছে অর্থাৎ ব্লেন্ড করতে করতে ডিমের রংটা সাদা হয়ে আসবে এবং চিনেও গুলে যাবে। তারপর আপনি তার মধ্যে দিয়ে দিন ময়দা। সেটিও খুব ভালো করে ব্লেন্ড করুন।


খুব ভালো করে ব্লেন্ড করার পর দেখবেন যতটুকু আপনার দ্রব্যাদি রয়েছে তার থেকে একটু বেশি ফুলে রয়েছে। সেটি তাহলে জানবেন একদম সঠিক হয়েছে। তবে খুব ভালো করে ব্লেন্ড করলে সেটি খুব বেশিক্ষণ সময় লাগেনা ২০ থেকে ২৫ মিনিটে আপনার সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। তারপরে সেই ময়দার উপর আপনি দিয়ে দেবেন বেকিং পাউডার, ভ্যানিলা। এবং যদি আপনার আরো কোন কেকের এসেন্স থাকে সেটি অরেঞ্জ ফ্লেভার হতে পারে বা অন্যান্য কিছু দেওয়ার পর সেটি আরেকবার ব্লেন্ড করে নেবেন।


তার সাথে সাথে আপনাকে আরো একটি কাজ করে ফেলতে হবে যেটি হল প্রেসার কুকারের গায়ে তেল মাখিয়ে 4 দিকে কাগজ লাগানো আর যদি আপনি প্রেসার কুকার এর মধ্যে না করতে চান তাহলে প্রেসার কুকারে তেল মাখানোর দরকার নেই। আপনি যে নিকেল কটেট বা কাঁচের পাত্র করতে চাইছেন সেখানে হালকা করে একটু তেল মাখিয়ে রাখুন। তার মধ্যে কেকের ব্যাটার টা দিয়ে দিন দিয়ে দেওয়ার পরে আপনি গ্যাসের উপর রাখুন। একদম কম ফ্লেমে রাখবেন আপনার গ্যাস এবং তার উপর একটা রুটি করা তাওয়া রাখবেন। সেটি গরম হওয়ার পর আপনার ওই কেকের পাত্রটি বসিয়ে দিন অর্থাৎ প্রেসার কুকার এর মধ্যে সেটি রেখে ওই গ্যাসের উপরে বসিয়ে দিন কুড়ি থেকে ত্রিশ মিনিট পর আপনি একটা কাঠি লাগিয়ে দেখুন যে কাঠের গায়ে কোন কিছু উঠছে কিনা যদি না উঠে। তাহলে দেখবেন একটা তেলতেলে ভাব রয়েছে। যদি তা হয় তাহলে জানবেন আপনার হয়ে গেছে কেক তৈরি। আর যদি তা না হয় তাহলে কেকের কাঠির মধ্যে লেগে যাবে তখন আপনি বোঝবেন আরো কিছুক্ষণ দরকার। তবে যদি খুব ভালো করে ব্লেন্ড করেন তাহলে কুড়ি মিনিটে অবশ্যই আপনার কেক হয়ে যাবে কিংবা 25 মিনিট সময় খুব বেশি হলে লাগতে পারে।


বন্ধুরা এভাবে বাড়িতে একবার চেষ্টা করুন আর এর সাথে আমরা আরও একটি ভিডিও লিঙ্ক দিয়ে দিলাম যে ভিডিও থেকে আপনার অনেকটাই আইডিয়া পাবেন এবং বাড়িতে করতে সক্ষম হবেন। তাই বন্ধুরা ভিডিওটি দেখুন এবং ভালো করে আমার এই রেইপি টি পড়তে থাকুন দেখবেন যেখান থেকে আপনি খুব সুস্বাদু একটি কেক বানাতে পেরেছেন। নতুন বছর বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন কেক। সবাই তোকে না কে খাচ্ছে তাই বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন একটি সুন্দর কেক 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন