কুলে খাড়ার অপরিসীম ভুমিকা মানব দেহে! প্রতেকদিন খাওয়া উচিত কুলে খাড়া! কেন জানেন

নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ বিভিন্ন শাক সবজির আমরা খেয়ে থাকি। শরীর স্বাস্থ্যের জন্য দরকার শাকসবজি খাওয়া। তার সাথে এক্সারসাইজ করা। আমরা প্রতিনিয়ত প্রতিদিন নিজেদের শরীরের যত্ন হয়তো সময় করে নিতে পারি না। আবার কেউ কাজ নিয়ে এতটাই ব্যস্ত তারা শরীরের কথা একেবারেই ভুলে যায়। কিন্তু সবার জন্য এটুকু মাথায় রাখা দরকার যে স্বাভাবিকভাবেই সারাদিন আমরা কাজের জন্য ব্যয় করলেও কাজ করছি যেহেতু শরীর বাঁচানোর জন্য তার শরীরটাকে আমাদের অন্ততপক্ষে একঘন্টা কেয়ার নেওয়া উচিত। আমাদের সারাদিনের শক্তি জোগাবে এই ১ ঘন্টার কেয়ার। তার মাঝে আপনি ভেবে দেখবেন আপনি সারাদিনে কি খাওয়া-দাওয়া করছেন কিভাবে চলেছেন কিভাবে থাকছেন তবে প্রত্যেকটা খাওয়া-দাওয়ার একটা আলাদা পুষ্টিগুণ রয়েছে প্রত্যেকটা খাবারের মধ্যে রয়েছে আলাদা গুনাগুন। কোন কোন খাবার আপনার কোন কোন পরিস্থিতিতে দরকার তা আগে থেকেই আপনার ভাবা উচিত। কারণ আপনি এখন কাজে আছেন কিন্তু আপনি শরীর যত্ন করছেন বয়স্ক কালে তা উচিত নয়। আপনি ইয়ং বয়স থেকেই শরীরের যত্ন নিন এবং আপনার  বয়স কালে তার ছাপ যেন না পড়তে দেয়।


আমরা সারাদিন খাওয়া-দাওয়ার মধ্যে বিভিন্ন শাকসবজি খেয়ে থাকি কিন্তু প্রত্যেকটা শাকসবজির আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য এবং গুনাগুন রয়েছে। তা আমাদের শরীরের হয়তো অপরিসীম অনেক গুরুত্ব রাখে তা আমরা অনেক সময় বিচার করে দেখি না। তাই আমাদের শরীরে কোন কোন খাবারের উপযুক্ত আর কোন কোন খাবার উপযুক্ত নয় তা আমরা নির্ধারণ করবো। প্রথমত আসবো শাকসবজির কথায়। আমরা বিভিন্ন শাকসবজি খেয়ে থাকি তবে আজকের আলোচনা করব সেই শক্তি আমাদের শরীরে অনেক বড় ক্ষতি থেকে বাঁচিয়ে দেয় সেই রকম একটি শাকের কথা। 



আমরা যে শাকসবজি খাই তার মধ্যে বিভিন্ন শাক সবজির বিভিন্ন গুনাগুন রয়েছে কিন্তু অতি মূল্যবান একটি শাকের কথা আজ আলোচনা করব। সেটি হল কুলেখাড়া অর্থাৎ বাংলা ভাষায় যেটিকে কুল্প শাক বলা হয়ে থাকে। এই শাকের অনেক গুণ রয়েছে আমরা প্রতিনিয়ত শরীরে রক্ত বাড়ানোর জন্য দরকার। এছাড়াও আরও অনেক বড় বড় ক্ষতি থেকে আমাদেরকে বাচায় কুলেখাড়া। প্রথমত আমরা এটুকুই বলবো যারা রক্তাল্পতায় ভুগছেন তাদের জন্য খাওয়া উচিত এবং যাদের রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কম তা বাড়ানোর জন্য খুব দরকারি। এছাড়াও যাদের হিমোগ্লোবিনের মাত্রা একেবারেই কম তাদের জন্য দরকার কুলেখারা রস। আপনি কুলেখারা রস খেতে পারেন। সেটি আপনার আমাদের শরীরের উপর কি কি প্রভাব ফেলে তারপর আপনার শরীরে যদি সমস্যা থাকে তা অনেকটাই দূর হয়ে যায়। তাছাড়া আপনার  কিডনিতে পাথর পড়ে তাহলে তার নির্মূল করতে বা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে কুলেখারা রস।


আপনার শরীরে ফুলে জাওয়া স্থানে এই শাকের রস প্রলেপ দিন দেখবেন দুতিনদিন লাগানোর পর আস্তে আস্তে সেটি কমে গেছে। কুলেখাড়ার মধ্যে রয়েছে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট আমাদের শরীরকে অনেক বেশি সতেজ ও রক্ত বাড়াতে সাহায্য করে এবং খুব তাড়াতাড়ি কোশ উৎপাদন করতেও সাহায্য করে। যার মাধ্যমে রক্ত সঞ্চালন করা অনেক বেশি সহজ হয়ে ওঠে। যাদের কেটে গেলে রক্ত বন্ধ হয় না অনেকক্ষণ ধরে বেরোতে থাকে তাদের জন্য সেই কাটা স্থানে যদি আপনি কুলেখারা রস দেন তাহলে খুব তাড়াতাড়ি কাটা শুকিয়ে যাবে এবং সেই মুহূর্তে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। তাই কুল্প শাকের অনেক গুণ রয়েছে আমাদের শরীরে।


আমাদের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে এই শাকের ক্ষমতা রয়েছে। তাতে আমাদের শরীরে অনেক শক্তিশালী করে রাখে যারা দুর্বল প্রতিনিয়ত মাথা ঘুরায় রক্তাল্পতায় ভুগছে তাদের জন্য এই শাকের খুব জরুরী। বিশেষ করে মেয়েদের জন্য খাওয়া খুব জরুরি। মাসিকের পর মেয়েদের শরীর অনেক দুর্বল হয়ে যায় তাই অন্তত এই ৫ টা দিন খুব দরকার আপনার শরীর সঠিকভাবে চালনা করার জন্য। এতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন রয়েছে যা আপনার শরীরের অনেক বেশি শক্তিশালী এবং সতেজ করে তুলবে। তাই বন্ধুরা সবাই এর জন্য এটুকু বলব যে কুল্পশাক এবং কুলেখাড়া বিভিন্ন রকম ভাবে খাওয়া যায়। এছাড়াও রস খেতে না পারেন লেবু দিয়ে কিংবা মধু দিও সেই রস খেতে পারেন। আপনি আপনার মত করে শুধুমাত্র কুলেখাড়া টাকে খান তাহলে দেখবেন আপনার অনেক রোগ মুক্তি পেয়েছে এবং সেই রোগ থেকে আপনি অনেক বেশি সহায়তা পাচ্ছেন। এই শাক এর জন্য তাই সবাইকে বলব অন্তত তিন থেকে চার দিন সপ্তাহে খেতে পারেন তাতে অনেক বেশি ফল পাবেন। আর এটি বাংলার প্রত্যেকটা জায়গায় পাওয়া যায়। বাংলার একটা অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শাখা। রাস্তায় ঘাটে মাঠে সব জায়গাতেই পেয়ে থাকেন ও বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। তাই বন্ধুরা সবার জন্য নিজের শরীরের খেয়াল রাখতে গেলে অবশ্যই আপনি আপনার খাবারের দিকে লক্ষ্য দিন এবং যাতে আপনার শরীর ভালো থাকবে সেদিকে খেয়াল রাখুন।

Post a Comment

أحدث أقدم