ঘোষণা হয়ে গেল ক্লার্কশিপ পরীক্ষা

ক্লার্কশিপ পরীক্ষা পরীক্ষার দিন ঘোষণা হয়ে গেল অ্যাডমিট দেবে পিএসসি। 6 ডিসেম্বর ক্লার্কশিপ পার্ট টু লিখিত পরীক্ষা। যোগ্যতা অনুযায়ী প্রার্থীরা আগামী পরশু থেকে এডমিট কার্ড সংগ্রহ করতে পারবে। প্রায় দশ মাস বাদে পরীক্ষা হচ্ছে করোনা মহা মারি আবহের জন্য। 

clerkship exam
Clerkship Exam

পাবলিক সার্ভিস কমিশন এত বড় পরীক্ষার আয়োজন করতে চলেছে।করো না পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পরীক্ষার্থীদের সুস্থতার কথা ভেবে অনলাইনে এডমিট কার্ড দেয়া শুরু হবে আগামীকাল দেখে প্রার্থীরা অনলাইনে এডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবে। wbpsc.gov.in কমিশনের ওয়েবসাইটে এই পেজে গিয়ে প্রথম পর্বের পরীক্ষা সফল পরীক্ষার্থীরা প্রয়োজনীয় তথ্য দিলে এডমিট কার্ড হাতে পেয়ে যেতে পারেন। 

পিএসসি থেকে জানানো হয়েছে, একবার তো এই পদ্ধতিতে এডমিট কার্ড দেয়া যাবে। কোনো ডুবলিকেট এডমিট কার্ড দেয়া যাবেনা কমিশনের অফিস থেকে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়েছে যে, ক্লার্কশিপ প্রথম পর্বের পরীক্ষায় রাজ্যে প্রায় সাড়ে 6 লাখের বেশি পরীক্ষার্থী বসে ছিলেন। 70 হাজারের পদপ্রার্থী দ্বিতীয় পর্যায়ের লিখিত পরীক্ষার জন্য দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে একটা গড় হিসেব করে দেখা গিয়েছে রাজ্যে সরকারি দপ্তরে গ্রুপ- সি পদমর্যাদার এই প্রাই 7000 পদ রয়েছে।

ওই পরীক্ষা সফল হলে দ্বিতীয় পরীক্ষায় সফল প্রার্থীদের চূড়ান্ত ইন্টারভিউর জন্য আবার তাদেরকে দেখে পাঠানো হবে।সেখানে বেশি যে জিনিসটার ওপর জোর দেওয়া হবে বা দক্ষতা চাই সেটি হল বাংলা ও ইংরেজিতে টাইপ করার সুদক্ষ তা যাচাই করা হবে। 

সব মিলেমিশে রাজ্যের বেশকিছু বেকার ছেলে বিয়ে কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে পিএসসি। সূত্রের খবর,চেষ্টা করা হচ্ছে  এই রেজাল্ট বা চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার লক্ষ্য রয়েছে বিধানসভা ভোটের আগে।এদিকে আগের তুলনায় রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে ও ট্রেন চালু হয় সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা অনেকটা সহজ হয়েছে,এই জন্য কমিশনের  খুশি।সেতু করলে পরিস্থিতির জন্য বেশ কয়েকবার বন্ধ থাকায় পরীক্ষার্থীদের কথা ভেবে তাদের যাওয়া ও আসার সুযোগ সুবিধার কথা মাথায় রেখে এতদিন যাবৎ পরীক্ষার দিন ঘোষণা করতে পারছিলোনা পিএসসি  আধিকারিকরা, তাই ট্রেন চালু হওয়াতে পরীক্ষার দিন ঘোষণা হয়ে গেল। 

কমিশনার অফিস থেকে জানা গিয়েছে, করোনা বাবার জন্য অনলাইন ইন্টারভিউ শুরু করেছিল কমিশন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অনেক নীতিবাচক দিক উঠে আসছিল ওই মূল্যায়ন পদ্ধতি।তাই আবার এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে পরীক্ষার্থীদের যোগ্যতা যাচাই করার জন্য তাদেরকে সামনাসামনি বসে পরীক্ষা যাচাই করে নিবেন।এই ক্লার্কশিপ পরীক্ষার জন্য বেশকিছু প্রস্তাবিত ডিজিটাল ইন্টারভিউ বাতিল করেছে পিএসসি।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন